Archive for the ‘Artcell’ Category

 

 

 

শিরোনামঃ ঘুণে খাওয়া রোদ
কথাঃ রুম্মান
কন্ঠঃ লিংকন
ব্যান্ডঃ আর্টসেল
অ্যালবামঃ অনিকেত প্রান্তর

 

 

চারটি দেয়াল ক্রমশ
সরে আসে বৃত্তের ভেতরে
কমে আসে আলো,
বস্তুর চারিপাশ এখন নীরব।

রঙ মূলত সাদা কালো
অন্ধকারের ছায়া-অপছায়া বোধ।

অথবা খয়েরী নীল আকাশ
অনেকটা ঘুণে খাওয়া রোদ
লেগে থাকে আকাশের গায়ে
সময়ের রঙহীন ক্যানভাস
আমার জানালায়।

স্বপ্ন এখন এগারো সাতাশ
শুন্যের ওপর দেখ,দেখো দাঁড়ায়
সম্মোহিত শহর
বাতাসের চোখে আজ,চোখে আজ
নেশার উৎকট আলো
রঙ মূলত সাদা কালো
অন্ধকারের ছায়া-অপছায়া বোধ।

অথবা খয়েরী নীল আকাশ
অনেকটা ঘুণে খাওয়া রোদ
লেগে থাকে আকাশের গায়ে
বিবর্ণ সময়ের
জানালায় আজ ঘুণে খাওয়া রোদ

আমার শরীর মানে আমি
ও ছায়া-ছায়া মানে মৃত রোদ
আত্মহুতি দেয় তাদের আলোর যৌবন সারাক্ষণ
মেঘে মেঘে ঢাকা পড়ে
চেনা অচেনা কত মুখ,
ছায়ার শরীর ছায়ায়
বাঁচে আলোর ভয়
জানালায় আজ ঘুণে খাওয়া রোদ।।

Advertisements

 

 

 

শিরোনামঃ রাহুর গ্রাস
কন্ঠঃ লিংকন
কথাঃ লিংকন
ব্যান্ড : আর্টসেল
অ্যালবাম : অন্য সময়

 

শূন্যতায় এঁকেছি গভীরতা
দৃপ্ত নেশায় উন্মাদ স্বচ্ছতা
জানিনা জীবনের, সেই সলতে কোথায়
ঝড়ো বাতাসেও, প্রদীপ জ্বালায়
স্বপ্নঘোর এ ধরায় মগ্ন এক বিলাসিতায়।

পাষণ্ড এ জগতের কোথায় শেকল গাড়া
ব্যর্থ শৃঙ্খলিত মনে তারই ছায়া
পাপের দংশনে দংশিত এ রক্ত ধারায়
শেষ প্রহরে শ্বাসরুদ্ধ রাহুর ছায়ায়।

স্বপ্নের ছায়ায় কারো উষ্ণতায়
ঝাপসা সুখে অশ্রু ঝরায়
অস্তমিত ঐ রবির
শেষ আলোকছটাও বিলীন
শ্রান্ত এক যুবা উদ্ভ্রান্ত মৌন মলিন
দুর্ভোগের উপহাস কিসের স্বপ্ন
কিসের উষ্ণতা
ঘনঘোর আঁধার কোলে
খোঁজে গন্তব্য শূন্যতা।

 

 

শিরোনামঃ স্মৃতিস্মারক
কন্ঠঃ লিংকন
কথাঃ রুম্মান আহমেদ
ব্যান্ডঃ আর্টসেল
অ্যালবামঃ অনিকেত প্রান্তর

 

তোমার ঘরে যত কথায়
যত সুরে আমাদের এ গানের শহর
শব্দ করে, আলো ভেঙে
অন্ধকারের মাঝে ফিরে যেতে
পুরনো সেই দিনের কথায় স্বপ্নাগারে

তোমার ভিড়ে যত আলোয়
তবুও নিভে পড়ে আছি আমরা যারা
অতীত হয়ে তোমার ঘরে
কথায় সুরে ইচ্ছে করে ফিরতে
পুরনো সেই দিনের কথায় স্বপ্ন হয়ে
তোমায় ছুঁতে আমার ভিতরে
অতীত ধরে হেঁটে হেঁটে
ইচ্ছে করে হারাতে

তোমাদের কাছে
হাজার শব্দে ভেসে
আমরা এসে আজ ভীড়ে মিলে মিশে
তবুও ঝড়ের বদ্ধঘরে
শব্দ ভেঙে ভেঙে
অতীত ছায়া স্পর্শ করে

চেনা চেনা চোখে
ছায়া রং হারিয়ে যায়
নিভিয়ে দেয় সময় কত স্মৃতি
তবু আমি
তোমায় খুঁজে পেতে চাই
পুরনো সেই দিনের সুরে
ফেলে আসা রূপকে

গানের আমি তুমি হারিয়ে যাব
মেঘের পরে মেঘে স্মৃতির ঘরে
সময় ভেঙে ভেঙে ভেঙে
অন্য রোদের অন্য সময়ে……

 

 

শিরোনামঃ অবশ অনুভুতির দেয়াল
কথাঃ রুম্মান
কন্ঠঃ লিংকন/এরশাদ
ব্যান্ডঃ আর্টসেল
অ্যালবামঃ অন্য সময়

 
(খুব কাছের কোন বন্ধু যখন চিরতরে হারিয়ে যায় মৃত্যু নামক অমোঘ সত্যের প্রাচীর পেরিয়ে, তখন অনুভুতির দেয়াল  অবশ হয়ে পড়ে থাকে।  দূরের আকাশে তাকিয়ে শুধু খোঁজাই সার হয়। বধির চোখ দেখে না কিছুই। গানের শব্দে দুঃখেরা কেবল মিশে যায় রুপক হয়ে)

তোমার জন্য পৃথিবী আজ নিয়েছে বিদায়
তবু তোমার টুকরো ছায়ায়
ডুবে আছে কত মিথ্যে আগুন অন্ধকারময়
কত স্মৃতি কত সময়
তোমার জন্য পৃথিবীতে
আজকে ছুটির রোদ
নিজের মাঝে তোমায় খোঁজা
আকাশ নীলে তাকিয়ে থাকা

তোমার জন্য পৃথিবী আজ নিয়েছে বিদায়
মেঘাচ্ছন্ন ব্যস্ত ঢাকায়
মানুষগুলো শূন্য চোখে দুঃখ দ্বিধায়
আকাশ পানে তাকায়
তোমার জন্য পৃথিবীতে থেমে যায় সময়
আমার দেহে রাত্রি নামায়
মিথ্যে আগুন অন্ধকারময়

ভীড়ের মাঝে আবার ভীড়ে
আমার শরীর মেশে কোলাহলে
দুঃখ ভুলে মিশে যাই মুখোশ স্রোতে
অনেক দুরের একলা পথে
ক্লান্ত আমি ফিরি তোমার কাছে
মুখোশ খুলে বসে রই জানলা ধরে

আমার গানের শব্দ সুরের অন্তরালে
তোমায় আঁকি কান্না চেপে
মহাকালের ক্লান্ত পথে

তোমার জন্য বৃষ্টি ঝরে আমার লেখায়
আলোর মতন মিথ্যে ছায়ায়
পাথর হয়ে ঘুরে মরে আমার হৃদয়
কত স্মৃতি কত মিথ্যে ভয়

তোমার জন্য গলার ভেতর
আটকে থাকে ক্রোধ
আমার চোখে স্মৃতির ঘোলা জল
নির্জনতায় তোমার কোলাহল

তোমার না থাকা অস্তিত্ব
রয়ে গেছে আমার নিঃশ্বাসে
ফেলে আসা এই পথে দুজনেই একসাথে

আমার অবশ
অনুভূতির দেয়াল জুড়ে কত সময়
হেটে এসে আমরা দু’জন
হারিয়েছি পথ কোথায় কখন

আমার দেহে খুঁজে ফিরি
তোমার অনুভূতি
তোমার চোখের দুরের আকাশ
মিশে থাকে রূপক হয়ে

তোমার জন্য বিষন্ন এক নিথর হৃদয়
আমার ভেতর দাঁড়ায় সরব একা
তোমার পৃথিবী স্বর্গের মতন চির অদেখা
তোমার পৃথিবী স্বর্গের মতন চির অদেখা……

তোমার জন্য পথ হারিয়ে অজানায়
তবু তোমার লেখায় কথায়
ফেরে ক্লান্ত আমার অলস সময়
কত স্মৃতি অন্ধকারময়

 

 

 

 

শিরোনামঃ এই বৃষ্টি ভেজা রাতে
কন্ঠঃ লিংকন
অপ্রকাশিত গান

 

এই বৃষ্টি ভেজা রাতে তুমি নেই বলে
সময় আমার কাটে না
চাঁদ কেনো আলো দেয় না
পাখি কেনো গান গায় না
তারা কেনো পথ দেখায় না
তুমি কেনো কাছে আসো না?(২)

সমুদ্রের ঝড়ো হাওয়া বলে
তারা তোমাকে চায়, তারা তোমাকে চায়
পাখি মৃদু কন্ঠে বলে
তারা তোমাকে চায়, তারা তোমাকে চায়
এই শরতেরই সন্ধ্যায় তুমি নেই বলে
সময় আমার কাটে না
কাশফুল কেনো ফুটে না, ছুয়ে ছুয়ে যায় না
মেঘের ভেলায় ভাসেনা, ভেসে তুমি কেনো আসো না?

ঝরে যাওয়া সব অশ্রু বলে
তারা তোমাকে চায়, তারা তোমাকে চায়
হৃদয়ের যত অনুভুতি আছে
তারা তোমাকে চায়, তারা তোমাকে চায়
এই বসন্তেরই সন্ধ্যায় তুমি নেই বলে
সময় আমার কাটে না
ফুলগুলো কেনো হাসেনা, হৃদয়ে দোলা দেয়না
আবেশেতে জড়ায়না
তুমি কেনো কাছে আসোনা?

এই বৃষ্টি ভেজা রাতে তুমি নেই বলে
সময় আমার কাটে না
চাঁদ কেনো আলো দেয় না
পাখি কেনো গান গায় না
তারা কেনো পথ দেখায় না
তুমি কেনো কাছে আসো না?

 

 

(Am)Ei brishti veja rate (F)tumi nei bole
(G)shomoy a(C)mar kate na

chaad keno (Am)alo dei na
pakhi keno (F)gaan gae na
tara keno (G)poth dekhay na
tumi keno (E)kache asho naa

(Am)Ei brishti veja rate (F)tumi nei bole
(G)shomoy a(C)mar kate na

chaad keno (Am)alo dei na
pakhi keno (F)gaan gae na
tara keno (G)poth dekhay na
tumi keno (E)kache asho naa

(Am)shomudrer jhoro (F)hawa bole
tara (G)tomake chae, tara (E)tomake chae
(Am)pakhi mridu (F)konthe bole
tara (G)tomake chae, tara (E)tomake chae

(Am)Ei shoroteri sondhay (F)tumi nei bole
(G)shomoy a(C)mar kate na

ghash ful (Am)keno fote na,
chuee (F)chuee jae na,
megher (G)velae vashe na,
veshe tumi (E)keno asho naa.

(Am)jhore jaoa shob (F)osru bole
tara (G)tomake chae, tara (E)tomake chae
(Am)hridoye joto onu(F)vuti ache
tara (G)tomake chae, tara (E)tomake chae

(Am)Ei boshonteri shondhay (F)tumi nei bole
(G)shomoy amar (C)kate na

shei tumi (Am)keno hasho na,
hridoye (F)dola dae na,
Abe(G)she jorao na
tumi keno (E)kache asho naa.

Guitar Chord Collected.

 

 

শিরোনামঃ রুপক-একটি গান
কন্ঠঃ লিংকন
কথাঃ রুম্মান
ব্যান্ড : আর্টসেল
অ্যালবাম : অন্য সময়

(আমাদের সবার লেখার, কথার, গানের যে শব্দ,
ভাষার যে উপমা, সব কেড়ে নিয়ে যে রুপক চিরতরে
হারিয়ে গেছে অদেখা স্বর্গে, তার স্মরণে রুপক আজ
একটি গান-আর্টসেল)

 

মনের ভিতর যুদ্ধ চলে আমার সারাক্ষণ
নেশার মতন থমকে থাকে
ক্লান্ত এ জীবন
ধ্বংস স্মৃতির পাড়ে বসে আমার আহ্বান
দুঃখ ভুলে নতুন করে
লিখছি তোমার এ গান
মিছিল ভাঙা নির্জনতায় দাঁড়িয়ে একা
আলোর নিচের অন্ধকারে স্মৃতির দেখা
চার দেয়ালের শব্দগুলো এখন শুধুই ছাই
মেঘের ঢাকা শহরটাতে তুই কেবল নাই
মনের ভেতর ভাঙা গড়ার
আদিম আয়োজন
শূন্যতায় ডুবে থাকে আমার সারাক্ষণ
নিয়ম ভাঙ্গার মগজ জুড়ে এখন শুধুই ছক
তেপান্তরের নির্বাসনে হারিয়ে গেছে রুপক
মনেই যুদ্ধ আমার নিজের সাথে লড়ি
স্মৃতির দেয়াল ছুঁয়ে হাজার মূর্তি গড়ি
চোখের দেখায় যা দেখি
আর হয়নি যা দেখা
অভিমানের নদীর তীরে
দাঁড়িয়ে থাকি একা
ভুল জন্মে কষ্ট আমার লেখার আপোষে
অদেখা এক স্বর্গ ভাসে অচেনা আকাশে
মনের ভেতর যুদ্ধ এখন
আমার সারারাত
অন্ধকারের কোলাহলে ধরেছি
তোমারই হাত
একলা ভীষণ আমার ঘরে
স্মৃতির হাহাকার
আলোয় চাইছি নিভিয়ে দেব
মলিন অন্ধকার
মনের ভিতর যুদ্ধ চলে আমার সারাক্ষণ
মহাকালে মিলিয়ে গালি হঠাৎ কখন

 

 

 

শিরোনামঃ চিলে কোঠার সেপাই
কথাঃ রুম্মান আহমেদ
কন্ঠঃ লিংকন
ব্যান্ডঃ আর্টসেল
অ্যালবামঃ আগন্তুক-২

যা দেখ যা দেখ না
ভাঙে যত অনুভুতি চেনা অচেনা
তোমার অনাগত সম্ভাবনায়
জমে ঘুণ পোকার আর্তনাদ

তোমার নীল আকাশ শূন্য চোখে
চেয়ে থাকে অন্ধকার দেয়ালে
তোমার আলো জন্ম দেয়
মিথ্যে ছায়াকে সম্মোহিত সময়ে

তোমার জানালায় নীল আকাশ

আঁধারে নয় আলোতে ভয়
দৃশ্যগুলো শব্দময়
শূন্যতায় ভীড়ে হারিয়েছে
স্তব্ধ সময়
স্বপ্নময় ঘুমে নয়
শব্ধগুলো দৃশ্যময়
শূন্যতায় নির্বাসিত রয়
স্তব্ধ সময়

ছায়াদের বাঁধা চোখে চোখে ফেরে
সময়ের নির্বাসিত নীল আকাশ
অন্ধকার ভেঙ্গে গড়ে আজ
শব্দ করে ইতিহাস
তোমার নীল আকাশ শূন্য চোখে
চেয়ে থাকে অন্ধকার দেয়ালে
তোমার আলো জন্ম দেয়
মিথ্যে ছায়াকে সম্মোহিত সময়ে

তোমার জানালায় নীল আকাশ

আঁধারে নয় আলোতে ভয়
দৃশ্যগুলো শব্দময়
শূন্যতায় ভীড়ে হারিয়েছে
স্তব্ধ সময়
স্বপ্নময় ঘুমে নয়
শব্ধগুলো দৃশ্যময়
শূন্যতায় নির্বাসিত রয়
স্তব্ধ সময়

তোমার মৃত স্বপ্নের
দৃশ্য আজও ওড়ে
বাতাসে বিগত সময় শব্দ করে
ভুলের চেনা শরীর
চিনি কি তোমাকে
এখানে কে দাঁড়ায়
ছায়ায় মিছিলে

একই অতীত
একই সময়
কেন তবু এই পথের শেষে
জড় অনুভূতি
কেন মেঘে ঢাকা পড়ে ছেড়া আকাশ।