Archive for the ‘Anupam Roy’ Category

শিরোনামঃ একবার বল
কন্ঠঃ অনুপম রায়
কথাঃ অনুপম রায়
সঙ্গীতঃ অনুপম রায়
মুভিঃ বাইশে শ্রাবণ

যেখানে শুরুর কথা বলার আগেই শেষ
সেখানেই মুখ ডুবিয়ে খুঁজতে চাওয়া আমারি অভ্যেস।
যেখানে রোদ পালানো বিকেল বেলার ঘাস
সেখানেই ছুটবো ভাবি কিনব গল্প ভুল হবে বলার।
এই বুঝি ফসকাল হাত আর কালো রাত
করে সময় গেল আয়োজনে।
প্রত্যেক দিন ভয় পাওয়া সব ইচ্ছেগুলো
অনেক ঝড়ের শব্দ শোনে

একবার বল নেই তোর কেউ নেই, কেউ নেই, কেউ নেই
একবার বল নেই তোর কেউ নেই, কেউ নেই, কেউ নেই
একবার বল নেই তোর কেউ নেই, তোর কেউ নেই

যেভাবে দৃশ্য অনেক গিলছে আমায় রোজ
সেভাবেই আড়াল পেলে ভাঙছি আমি হচ্ছি যে নিখোঁজ।
যেখানে ডাক পাঠালে মৃত দেহের ভিড়
সেখানেই তুলছি ছবি , টলছি নেশায় আসছি আবার ফিরে।
এই বুঝি ফসকাল হাত আর কালো রাত
করে সময় গেল আয়োজনে।
প্রত্যেক দিন ভয় পাওয়া সব ইচ্ছেগুলো
অনেক ঝড়ের শব্দ শোনে।

আজ শেষমেশ নেই তোর কেউ নেই, কেউ নেই, কেউ নেই
আজ শেষমেশ নেই তোর কেউ নেই, কেউ নেই, কেউ নেই
আজ শেষমেশ নেই তোর কেউ নেই, তোর কেউ নেই

একবার বল একবার বল একবার বল নেই তোর কেউ নেই, কেউ নেই, কেউ নেই
আজ শেষমেশ নেই তোর কেউ নেই, কেউ নেই, কেউ নেই
একবার বল নেই তোর কেউ নেই, তোর কেউ নেই
এ…হে তোর কেউ নেই, ও…হো তোর কেউ নেই আ…হা…

Advertisements

 

 

শিরোনাম : বাড়িয়ে দাও
কন্ঠঃ অনুপম রায়
কথাঃ অনুপম রায়
সঙ্গীতঃ অনুপম রায়
মুভিঃ চলো পাল্টাই   

 

 

বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
আমি আবার তোমার আঙুল ধরতে চাই।
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
আমি আবার তোমার পাশেই হাঁটতে চাই
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
তোমার হাত।

কিভাবে কাঁচের দেয়াল,
যেন আটকে থেকে যায়
কখনো ফুরোয় কথায়।
অনেক সন্ধ্যাবেলায়,তোমার ক্লান্ত চুলের হাত,
ছোঁয়াও আমার মাথায়।
এখন, কৃষ্ণচূড়ার আলো
আমাদের রাস্তা সাজানো
ও…ও….হো…হো…
তোমার পাশেই আমায় পাবে,
তোমার রক্তে বানানো,
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
আমি আবার তোমার আঙুল ধরতে চাই।
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
আমি আবার তোমার পাশেই হাঁটতে চাই
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
তোমার হাত।

মনের ভেতর ঘরে,
কিছু পাথর জমানো
ভাঙতে চাইছি যখন।
পাহাড় বরফ ঢেলে মুহূর্ত গলানো
হয়তো যাবে তখন।
এখন, কৃষ্ণচূড়ার আলো
আমাদের রাস্তা সাজানো
ও…ও….হো…হো…
তোমার পাশেই আমায় পাবে,
তোমার রক্তে বানানো,
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
আমি আবার তোমার আঙুল ধরতে চাই।
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
আমি আবার তোমার পাশেই হাঁটতে চাই
বাড়িয়ে দাও,তোমার হাত
তোমার হাত।

http://forum.projanmo.com/

শিরোনামঃ আমাকে আমার মতো থাকতে দাও
শিল্পী, সুরকার, গীতিকারঃ অনুপম রায়
মুভিঃ অটোগ্রাফ
mp3 ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://www.mediafire.com/?z82bdwcwu89bd38
video ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://www.youtube.com/watch?v=vYsfSlEBh5Y

 

 

 

আমাকে আমার মতো থাকতে দাও,
আমি নিজেকে নিজের মতো গুছিয়ে নিয়েছি।

আমাকে আমার মতো থাকতে দাও,
আমি নিজেকে নিজের মতো গুছিয়ে নিয়েছি।
যেটা ছিলনা ছিলনা সেটা না পাওয়াই থাক,
সব পেলে নষ্ট জীবন।

তোমার এই দুনিয়ার ঝাপসা আলোয়,
কিছু সন্ধ্যের গুড়ো হওয়া কাচের মতো।
যদি উড়ে যেতে চাও তবে গা ভাসিয়ে দাও,
দূরবীণে চোখ রাখবো না না না (না না না না না না না)।

এই জাহাজ মাস্তুল ছাড়খার,
তবু গল্প লিখছি বাঁচবার।
আমি রাখতে চাইনা আর তার,
কোন রাত-দূপুরের আবদার।
তাই চেষ্টা করছি বারবার,
সাঁতরে পাড় খোঁজার।

কখনো আকাশ বেয়ে চুপ করে,
যদি নেমে আসে ভালবাসা খুব ভোরে।
চোখ ভাঙ্গা ঘুমে তুমি খুজোনা আমায়,
আশেপাশে আমি আর নেই।

আমার জন্য আলো জ্বেলোনা কেউ,
আমি মানুষের সমুদ্রে গুনেছি ঢেউ।
এই স্টেশনের চত্বরে হারিয়ে গেছি,
শেষ ট্রেনে ঘরে ফিরবো না না না (না না না না না না না)।

এই জাহাজ মাস্তুল ছাড়খাড়,
তবু গল্প লিখছি বাঁচবার।
আমি রাখতে চাইনা আর তার,
কোন রাত-দূপুরের আবদার।
তাই চেষ্টা করছি বারবার,
সাঁতরে পাড় খোঁজার।

(না না না না না না না না না না না না না না না, না না না না না না না না না না না না না না না)

তোমার রক্তে আছে স্বপ্ন যতো,
তারা ছুটছে রাত্রি-দিন নিজের মতো।
কখনো সময় পেলে একটু ভেবো,
আঙুলের ফাকে আমি কই;

হিসেবের ভিড়ে আমি চাইনা ছুঁতে,
যত শুকনো পেয়াজ কলি, ফ্রিজের শীতে;
আমি ওবেলার ডাল-ভাত ফুরিয়ে গিয়েছি,
বিলাসের জলে ভাসব না না না।

এই জাহাজ মাস্তুল ছাড়খাড়,
তবু গল্প লিখছি বাঁচবার।
আমি রাখতে চাইনা আর তার,
কোন রাত-দূপুরের আবদার।
তাই চেষ্টা করছি বারবার,
সাঁতরে পাড় খোঁজার।

(না না না না না না না না না না না না না না না, না না না না না না না না না না না না না না না)